সাগর-মহাসাগর জোড়া ভারতীয় নৌবহর

1542
সাগর-মহাসাগর জোড়া ভারতীয় নৌবহর

ভারতীয় স্থলসেনা, বিমানবাহিনীর মতো ভারতের নৌবাহিনীর পরাক্রমও গৌরবময়৷ভারতীয় উপকূলের সুরক্ষার জন্য নৌবাহিনীই অতন্দ্র প্রহরী হিসাবে কাজ করে৷ দেখা যাক, আপাতত তার ভাঁড়ারে কী রয়েছে আর কী আসতে চলেছে৷লিখছেন মণিশংকর চৌধুরী

আইএনএস বিক্রমাদিত্য: সোভিয়েত ইউনিয়ন নির্মিত এই যুদ্ধজাহাজ ভারতীয় বায়ুসেনার প্রধান বিমানবাহী রণতরী৷ এটিতে কমপক্ষে ৫০টি জঙ্গিবিমান বহন করা যায়৷ জাহাজের ওজন প্রায় ৪৫ হাজার ৪০০ টন৷ জাহাজটিতে অত্যাধুনিক রেডার প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে৷ এছাড়াও আত্মরক্ষার জন্য মিসাইল, টর্পেডো সহ নানা ধরনের যুদ্ধাস্ত্র মোতায়েন রয়েছে৷

আইএনএস বিক্রমাদিত্য
আইএনএস বিক্রমাদিত্য

আইএনএস বিরাট: ব্রিটেনে নির্মিত এই জাহাজটির ওজন প্রায় ২৮ হাজার ৭০০ টন৷ এই জাহাজটিকে ২০১৬ সালে অবসর দেওয়া হবে৷ হালে জাহাজটির আধুনিকীকরণ করা হয়েছে৷ এই জাহাজ সি-হেরিয়ার জঙ্গি বিমান বহন করতে সক্ষম৷

Virat

আইএনএস বিশাল: এটি একটি বিক্রান্ত ক্লাসের বিমানবাহী রণতরী৷এখনও নির্মীয়মাণ৷ আইএনএস বিশাল ভারতের প্রথম পরমাণু শক্তিসম্পন্ন জাহাজ হতে চলেছে৷ কোচিন শিপইয়ার্ড লিমিটেড এই যুদ্ধজাহাজের খোলনলচে নবরূপে গঠন করছে৷ পুরোপুরি জলে ভাসলে এটি প্রায় ৮০টি যুদ্ধবিমান বহন করতে সক্ষম হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷vishal

ডেসট্রয়ার, আইএনএস কলকাতা: এটি একটি বিধ্বংসী যুদ্ধজাহাজ৷ জাহাজটির ওজন ৭,৫০০ টন৷ নিজস্ব প্রযুক্তিতে ভারতে নির্মিত এই জাহাজটির বিশেষত্ব হল, এটি গাইডেড মিসাইল ডেসট্রয়ার৷ অত্যাধুনিক রেডার দ্বারা এই মিসাইলগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে লক্ষ্যভেদে সক্ষম৷ এ রকম আরও দুটি যুদ্ধজাহাজ, আইএনএস কোচি এবং আইএনএস চেন্নাই ভারতের নৌসেনাকে আরও শক্তিশালী করে তুলবে৷

ins-kolkata

আইএনএস চক্র: পরমাণু শক্তিসম্পন্ন এই সাবমেরিনটি রাশিয়া থেকে ১০ বছরের জন্য লিজে নেওয়া হয়েছে৷ ১২ হাজার ৭৭০ টনের সাবমেরিনটির বিশেষত্ব হল, শত্রুপক্ষের রেডারের চোখে ধুলো দিয়ে তা আক্রমণ হানতে সক্ষম৷ সাবমেরিনটিতে বিভিন্ন উচ্চ প্রযুক্তিসম্পন্ন মিসাইল এবং আত্মরক্ষার জন্য টর্পেডো রয়েছে৷

INS-CHAKRA

আইএনএস অরিহন্ত: সম্পূর্ণত দেশের প্রযুক্তিতে নির্মিত এই পরমাণু ক্ষমতাসম্পন্ন সাবমেরিনটির বর্তমানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে৷ এটি পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম হবে বলে আশা করা হচ্ছে৷ এই সাবমেরিনটি ব্যালিস্টিক মিসাইল বহনেও সক্ষম৷

ins