আশ্বিনের চতুর্দশ লগ্নে ‘পার্টি টাইম’ তেনাদের

931
pic
সৌমেন শীল

অজানা বা না দেখা জিনিষ নিয়ে মানুষের আগ্রহ অন্তহীন। ঠিক এমনই একটি বিষয় হচ্ছে ভূত। ভূত নিয়ে আগ্রহ রয়েছে বিশ্বের সমস্ত প্রান্তের মানুষের। সেই ভূতদের নিয়ে একটি বিশেষ দিনও পালন করা হয়ে থাকে। তবে বছরের এই দিনটি বিশ্বের সর্বত্র এক দিনে পালন করা হয় না। ধর্মের ভিত্তিতে এর তারতম্য ঘটে থাকে। ভূতদের স্মরণের এই বিশেষ দিনটি ভারত বা ভারতীয় উপমহাদেশে ‘ভূত চতুর্দশী’ এবং পশ্চিম দুনিয়াতে ‘হ্যালোউইন ডে’ নামে পরিচিত।

বাংলায় আশ্বিন মাসের চতুর্দশী তিথিতে পালিত হয় ভূত চতুর্দশী। সাধারণত কালিপুজোর আগের দিন এই ভূত চতুর্দশী পালন করা হয়ে থাকে। অশুভ শক্তিকে বিনাশ করতে এবং অতৃপ্ত আত্মাদের তুষ্ট করতে এই দিনে ১৪ শাক খাওয়া হয় এবং সন্ধ্যায় ১৪ টি প্রদিপ জ্বালানো হয়।

আমাদের ভূত চতুর্দশীর বিদেশে (বিশেষত পশ্চিমের দেশে) “হ্যালোউইন” নামে পরিচিত। প্রতিবছর ৩১ অক্টোবর সারা বিশ্বে পালিত হয় হ্যালোউইন। ‘হ্যালোউইন’কে পৃথিবীর কোথাও কোথাও ‘অল হ্যালোস ইভ’ও বলা হয়। এই ‘হ্যালোউইন; কথাটির অর্থ হচ্ছে পবিত্র সন্ধ্যা। কুমড়ো দিয়ে গা ছমছম লন্ঠন জ্বালিয়ে ভূতুড়ে পোষাকে কস্টিউম পার্টিতে `হ্যালোউইন` উত্সবে মেতে ওঠে সবাই। উদ্দেশ্য অতৃপ্ত আত্মাদের বিদায় জানানো। অশুভ শক্তিকে দূরে রাখতেই এই `হ্যালোউইন`।

হাওয়ায় হিম, ভূত দেখে রক্ত হিম !
সব ব্রহ্মদত্যি, পেত্নী, শাঁখচুন্নীর ওই দিন পার্টি টাইম।