‘মানুষ ভূতে’র ভয়ে গা ছমছম করে টলি-সুন্দরীদের

1914

কেউ ভয় পান৷ কেউ আবার ভূত মানেনই না৷ আবার তাদের মধ্যে অনেকের ‘মানুষ ভূতে’ বড় ভয়৷ সেলেবদের ভূত চতুর্দশীর আগে সেলেবদের সঙ্গে খোলামেলা কথা বললেন দেবযানী সরকার

মনামী: এমনিতে আমার ভূতের ভয় নেই তবে আমার পুরনো বাড়িতে থাকারdebjani সময় মনে হত বাড়ির ভিতরে একটা যেন স্পিরিট আছে৷এই স্পিরিট ব্যাপারটা আমি বিশ্বাস করি কিন্তু ওইভাবে ‘ভূত’ ব্যাপারটা ঠিক বিশ্বাস করতে পারি না৷

রচনা: আমি ভূত কোনোদিন দেখিওনি আর ভূতটুত আছে বলে আমি বিশ্বাস করি না৷লোকজন এসব নিয়ে প্রচুর আষাঢ়ে গল্প বলে, এসব শুনলে আমার জাস্ট হাসি পায়৷

শ্রীলেখা: ভূতের ভয় আমার নেই তবে ভূতের সিনেমা দেখতে খুব ভয় পাই৷বলতে পারেন মানুষ ভূত খুব ভয় পাই৷তবে স্পিরিট বলে যে কিছু আছে সেটা বিশ্বাস করি৷আমার শাশুড়ির মৃত্যুর পর একবার আমার ননদ প্ল্যানচেট করেছিল৷ ওরা তো বলেছিল, শাশুড়ি মাকে নাকি ওরা দেখতে পেয়েছে৷ এই তো, কয়েকদিন আগে পরম(পরমব্রত বিশ্বাস)আমার বাড়িতে এসেছিল৷ওই বলছিল ওর এক বন্ধুর স্ত্রী নাকি চোখের সামনে ভূতের কার্যকলাপ দেখেছে৷

জুন: আমি তো ভূত বিশ্বাসই করি না তাহলে ভূতের ভয় কেন পাব?আর ভূতের সিনেমা দেখি তবে খুব ভালো লাগে না৷