সমকামী বিবাহে সম্মতি মানেই রামধনু প্রোফাইল পিকচার নয়

2731

কফি হাউস থেকে যে যাত্রাটা শুরু হয়েছিল, পাঁচ সপ্তাহ পেরিয়ে সেই ‘আড্ডাবাজ’ আজ খানিকটা সাবালক হতে পেরেছে। পর্নস্টার থেকে প্রথম প্রেম-আড্ডা এগিয়ে চলেছে দ্রুত, অপ্রতিরোধ্য গতিতে। এই জেনারেশনের ছেলেমেয়েরা যে কোনও বিষয়েই কথা বলতে ভয় পায় না ‘অন এয়ার’। ফের একটা জ্বলন্ত ইস্যু নিয়ে এ সপ্তাহে টিম ক্যাম্পাস হাজির হয়েছিল দক্ষিণাপনে। বিষয়-সমকামী বিবাহে শীর্ষ আদালতের সম্মতি ও এ দেশে তার প্রভাব। কয়েকজন টিনএজারের কাছে আড্ডার প্রস্তাব পাড়তেই হৈ হৈ করে রাজি। ব্যাস, আর পায় কে? নোটবুক-কলম বাগিয়ে আড্ডায় মজে গেল টিম ক্যাম্পাস। অফিস ফিরে কাঁচি চালালেন ক্যাম্পাসের বিভাগীয় সম্পাদক দীপেন্দু পাল।

কৌশিক গুপ্ত, এই টিমের মধ্যে সবচেয়ে হ্যান্ডসাম দেখতে। তাই ওর কথাই সবাই শোনে হয়তো। কিন্তু বাকযুদ্ধে ততটা পটু নয়। আর বিষয়টা নিয়ে জ্ঞান ওই খবরের কাগজটুকুই।

কৌশিক: যাক, অনেক আন্দোলনের পর শেষ পর্যন্ত আমেরিকায়  সমকামীদের বিয়ের ব্যাপারটা আইনসিদ্ধ হল।  যার সমর্থনে বদলে যাচ্ছে সবার ফেসবুকের প্রোফাইল ছবির রং-ও।

নীল, পুরো নাম অবশ্য নীলাঞ্জন সাঁতরা। পিতৃদত্ত পদবি ছেড়ে নীল হয়েছে কলেজে ঢোকার দিন। কথাবার্তায় তুখোড়, আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে পড়াশোনা রয়েছে বোঝাই যায়।

same-sex-4

নীল: ***-এর মতো কথা বলিস না। জ্ঞান তো ওই ফেসবুকের ডিপি পর্যন্ত, সকামীতা নিয়ে বুলি কপচাস না। হ্যানা মনটেনার চরিত্রে চুটিয়ে অভিনয় করেছেন মাইলি সাইরাস। জানিস কি, টিন-এজ এই তারকা ভিক্টোরিয়া সিক্রেট-এর মডেল  চব্বিশ বছরের স্টেলা ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে ডেট করে। বহুদিন ধরেই এই সমকামী জুটি প্রকাশ্যে প্রেম করছে। আমেরিকায় ব্যক্তিস্বাধীনতা নিয়ে বরাবরই সোচ্চার। এখন সেটা জাস্ট আইনি স্বীকৃতি পেল।

জয়িতা ব্যানার্জি, ফেসবুকর ‘জয়ী তোমার জন্য’। স্মার্ট, আধুনিকা, ইংরেজি অনার্স।

জয়ী: আমি তো বুঝতেই পারছি না এটা নিয়ে এত হৈচৈ কেন করছিস তোরা? আমার কাকে ভালো লাগবে না লাগবে সেটা একমাত্র আমিই ঠিক করব। এতে ‘সুবিধে দেওয়া হল’ দাবি করার কী আছে আমি তো বুঝলাম না। সমকামীদের ট্যাক্স দিতে হবে না, বা বিনা পয়সায় বাড়ি দেওয়া হবে জানলে না হয় বুঝতাম যে সুবিধে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমার শরীর কাকে আকর্ষণ করবে না করবে, তা নিয়ে সমাজ এত আতুপুত করবে কেন হে? অভিনেত্রী কারা ডেলাভিন মেয়েদের প্রতি তাঁর আকর্ষণের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বহুদিন আগে। তিনি যে পুরুষদের প্রতি আকর্ষণ বোধ করেন না তেমনটা নয়। কিন্তু মেয়েরা তাঁকে আনুপ্রাণিত করে।

(সুবীর ভ্ট্টাচার্য, এই গ্রুপের কেউ হয় না। বয়সে একটু সিনিয়র, নিয়মিত বিতর্কসভায় অংশগ্রহণ করে বলে কথায় জড়তা নেই। তবে চিন্তাভাবনা একটু ব্যাকডেটেড।)

same-sex-6

সুবীর: ন্যাকামির একটা সীমা থাকে। আর তোদেরও বলিহারি। সমকামী ব্যাপারটাই বিকৃত মানসিকতা। একটা ছেলে কী করে একটা ছেলের সঙ্গে সেক্স করতে পারে ভেবে দেখেছিস? ভগবান ছেলে ও মেয়েকে পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন যাতে দুজন একে অপরের সঙ্গে স্বাভাবিক রিলেশন গড়ে তুলতে পারে। কিন্তু এই সমকামীরা আউট অফ দ্য বক্স। আমি কোনওমতেই এটাকে সমর্থন করে তোদের মতো হেপ হতে পারব না।

জয়ী: (খানিকটা ব্যাঙ্গের সুরে) ভাগ্যিস আয়ারল্যান্ডের মানুষ তোর মতো ভাবে না। সেখানেও সমকামী বিয়ে সিলমোহর পেয়েছে। একই লিঙ্গের দুই মানুষের বিয়েতে কোনও আপত্তি নেই সে দেশের মানুষের। ডাবলিন, লিমেরিক, ওয়াটারফোর্ড— সর্বত্র হইহই করে পাশ হয়েছে এই আইন। অথচ আমাদের দ্যাখ! আসলে তোর মতো মেন্টালিটির কিছু মানুষ দেশের নিয়মকানুন প্রণয়ন করার মতো জাগায় বসে আছেই বলেই কিন্তু ফেসবুকের ডিপি পালটেই খুশি থাকতে হয় আমাদের।

কৌশিক: আমি যতদূর জানি, সেখানকার ক্যাথলিক সমাজ সমকামীতা বা গর্ভপাতের মতো স্পর্শকাতর বিষয়কে কিন্তু বরাবর দূরে সরিয়ে রেখেছিল। ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত আয়ার্ল্যান্ডে সমকামিতা ছিল আইনত অপরাধ। ২০১০ সালে বহু কাঠখড় পোড়ানোর পর সেনেটে বিল পাশ করে শুধু সমকামীদের একসঙ্গে থাকাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। আর এখন তো বিয়ে করার আইনও পাশ হল। কিন্তু ভারতে সে সব এখনও বহু ক্রোশ দূরে।

নীল: এলেন ডিজেনেরেস,গতবছর অস্কারের ‘হোস্ট’ও কিন্তু একজন স্বঘোষিত লেসবিয়ান। বান্ধবী পোর্শিয়া দি রোসিকে বিয়ে করেছেন বেশ কয়েকবছর আগে। দিব্যি সুখেই রয়েছেন দু’জন। আসলে গোটা বিষয়টাই মানসিকতার। same sex kolkata24x7

(বোঝাই যাচ্ছিল, এ বিতর্ক থামার নয়। কিন্তু ঢাকুরিয়া থেকে সল্টলেক ফিরতে হবে তো, তাই পাততাড়ি গুটোনো হল। আড্ডা ছেড়ে বেরোনোর আগে সব্বাই মিলে গরমাগরম ফিশ পকৌড়া ও চা খাওয়া হল। আগামী সপ্তাহে ক্যাম্পাসের এই বিভাগে আবার তুলে আনা হবে কোনও এক আড্ডাবাজদের কথা।)